মাইক্রোসফট অফিস প্রোগ্রাম কম্পিউটার ট্রেনিং খিলক্ষেত

মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড কী….?

বর্তমানে ওয়ার্ড প্রসেসিং সফ্টওয়্যারের মধ্যে মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড একটি অন্যতম জনপ্রিয় প্রোগ্রাম। এর মাধ্যমে ওয়ার্ড প্রসেসিং এর কাজ করা হয়। অর্থাৎ যে প্রোগ্রামের মাধ্যমে সুন্দর উপস্থাপনায় ওয়ার্ড এর কাজ করা হয়, তা হলো মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড।

মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড এর ধারণা ও কম্পোনেট…

বর্তমানে ওয়ার্ড প্রসেসিং সফ্টওয়্যারগুলোর মধ্যে মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড একটি অন্যতম জনপ্রিয় প্রোগ্রাম। এর মাধ্যমে ওয়ার্ড প্রসেসিং এর কাজ করা হয়। অর্থাৎ যে প্রাগ্রামের মাধ্যমে সুন্দর উপস্থাপনায় ওয়ার্ডের কাজ করা হয়, তা হলো মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড। বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন সফ্টওয়্যার তৈরি করা হয়েছে। কোনো নির্দিষ্ট কাজের জন্র যে প্রোগ্রাম দরকার অন্য প্রোগ্রাম দিয়ে সেই কাজ সুন্দরভাবে করা সম্ভব হয় না। যেমন সুন্দরভাবে চিঠিপত্র , দলিল পত্র, এস.এম.এস, সিভি ইত্যাদি লেখার জন্য এমএস ওয়ার্ড প্রোগ্রাম অতি উত্তম প্রোগ্রাম, যা অন্য প্রোগ্রাম দ্বারা সুন্দরভাবে লেখা সম্ভব হয় না।

ওয়ার্ড প্রসেসর ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধাঃ

সুবিধা কি কি আমরা জেনে নেই..

১. ওয়ার্ড প্রসেসর ব্যবহার করে বিভিন্ন ডকুমেন্ট তৈরি করা যায়।

২. ওয়ার্ড প্রসেসর ব্যবহারের ফলে বিভিন্ন ডকুমেন্টকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা যায়।

৩. ডকুমেন্ট সেভ করে রাখা যায়। প্রয়োজন অনুযায়ী যে- কোনো সময় তা ব্যবহার করা যায়।

৪. ওয়ার্ড প্রসেসর ব্যবহারের ফলে হাতে লিখে ডকুমেন্ট তৈরির প্রয়োজন পড়ে না।

অসুবিধা..

১. কেনো কারণে হার্ডডিস্ক ক্র্যাশ করলে ডকুমেন্ট হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

২. ওয়ার্ড প্রসেসর ব্যবহারের ফলে মানুষের হাতে লেখার প্রবণতা কমে এসেছে।

৩. প্রযুক্তির ব্যবহার সঠিক জানা না থাকলে বা প্রযুক্তির ক্রটির কারণে যে- কোন সময় সমস্যা দেখা দিতে পারে।

  • ব্যসিক প্রাকটিক্যাল ক্লাস

  • ফান্ডামেন্টাল অফ কম্পিউটার

  • উইন্ডোজ সেটআপ

  • সফটওয়্যার ইনস্টলেশন

  • এম.এস. ওয়ার্ড

  • এম.এস. এক্সেল

  • এম.এস. পাওয়ার পয়েন্ট

  • এম.এস. এক্সেস

  • ইন্টারনেট এন্ড ইমেইল

  • কোর্সের মেয়াদ: ০৩ মাস

  • মোট ক্লাস: ৩৬ টি

  • ক্লাস: প্রতি শনি, সোম, বুধ